Sun Sun Sun Sun Sun
English

সুস্থতা ও সুন্দরের চর্চায় গণতন্ত্রের অনুশীলন করুন অন্যের অধিকারের প্রতি সচেতন থাকুন

|| ড. এম হেলাল ||
নিজের অধিকার সচেতনতার পাশাপাশি অন্যের অধিকারের প্রতি সদাসচেতন এবং সদাজাগ্রত থাকা সুশিক্ষা ও সভ্যতার পরিচায়ক। অন্যের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য নিজের স্বার্থত্যাগ এমনকি আত্মবলিদানেও পিছপা হন না মানবতাবাদী আধুনিক মানুষরা। তিনিই আধুনিক ও যুক্তিবাদী মানুষ, যিনি নিজের মতের পক্ষে যুক্তি প্রদর্শনের পাশাপাশি প্রতিপক্ষের অভিমতের প্রতিও শ্রদ্ধাশীল থাকেন। শিক্ষা, সভ্যতা ও জ্ঞানের আলোর এ স্তরে পৌঁছার চেতনা বা সৌভাগ্য হয় খুব কম মানুষেরই। আমরা সবাই যদি অন্যের অধিকারের প্রতি সচেতন এবং প্রকৃত গণতন্ত্রের চর্চায় অভ্যস্ত হতাম, তাহলে সমাজে-জাতিতে ও বিশ্ব পরিসরে থাকত না কোনো দ্বন্দ্ব বা অনাচার।

গণতন্ত্রের মূল কথা হচ্ছে ব্যক্তিস্বাধীনতা। মানুষ স্বাধীন; প্রত্যেক মানুষকে তার স্বাধীনতা দিতেই হবে। আবার ঐ মানুষটিকেও এমনভাবে স্বাধীনতার চর্চা করতে হবে, যাতে তার স্বাধীনতা ভোগের কারণে অন্য কেউ ক্ষতিগ্রস্ত না হয়। তিনি ততটুকুন পর্যন্তই স্বাধীন, যতটুকু পর্যন্ত তার দ্বারা অন্যের কোনো অসুবিধা না হয়। নিজ স্বাধীনতার চর্চায় অন্যের অধিকার ক্ষুণœ হলেই ব্যাহত হবে গণতন্ত্র। অর্থাৎ গণতন্ত্রকামী মানুষটি তার হাত ততটা পর্যন্ত নাড়াতে পারবেন, যতটা পর্যন্ত নাড়ালে অন্যের গায়ে না লাগে। অন্যের গায়ে হাত লাগলেই কিন্তু ব্যাহত হয় গণতন্ত্র এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রে শুরু হয়ে যায় একশন-রিএকশন। আমার অভিজ্ঞতায় দেখেছি বাঙালি গণতন্ত্র চাইতে জানে, গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন করে প্রাণ দিতেও কুণ্ঠাবোধ করে না। কিন্তু ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক বা রাজনৈতিক জীবনে কখনো চর্চা করেনি গণতন্ত্রের। গণতন্ত্র না বুঝে, চর্চা না করে গণতন্ত্রের জন্য মায়াকান্না করা ও বুলি আওড়ানোর অসততার কারণেই এখানকার এ দৈন্যদশা। এ বিষয়ে বিস্তারিত বলেছি সৃজনশীলতা বৃদ্ধি এবং দেশ ও জাতির উন্নয়ন বইয়ের `অত্যাধুনিক বিশ্ব` শীর্ষক আর্টিকেলে। 

গণতন্ত্রের চর্চা মানে শৃঙ্খলা, সভ্যতা, সুস্থতা ও সুন্দরের চর্চা। আমরা প্রত্যেকে অন্যের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সচেতন থাকলে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই নিজের অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়ে যায়। তাই নিজের সুস্থতা বা শান্তির জন্যও অন্যের অধিকার প্রতিষ্ঠা প্রয়োজন। অন্যের অধিকার নিশ্চিত করলেই নিজের স্বস্তি, সুস্বাস্থ্য, শান্তি ও সফলতা নিশ্চিত হয়। তা নাহলে তাদের হাহাকার, রোনাজারি, আন্দোলন-বিদ্রোহ-বিপ্লব গড়ে উঠলে নিজের সুখ-শান্তি টিকে থাকবে না; সফলতাতো সুদূর পরাহত। তাই অন্যের অধিকারের প্রতি সচেতন থেকে গণতন্ত্রের চর্চা ও অনুশীলন আপন স্বার্থ সুনিশ্চিতের জন্যই জরুরি।